করোনাকালে বিয়ের হিড়িক ক্রিকেট পাড়ায়!

6

স্পোটর্স ডেস্ক : করোনা মধ্যে একের পর এক সুখবর দিয়েছেন দেশের ক্রিকেটাররা। গত প্রায় ২০ দিনে একে একে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হয়েছেন জাতীয় দলের ৫ ক্রিকেটার। জুনের প্রথম সপ্তাহে খবর এলো- আবু জায়েদ রাহী বিয়ে করেছেন। এর কয়েকদিন পর দ্বিতীয় বিয়ে করলেন মোসাদ্দেক হোসেন সৈকত।

সপ্তাহ ঘুরতেই শুভ কাজটা সাড়েন জাতীয় দলের তরুণ ব্যাটসম্যান নাজমুল হোসেন শান্ত। এরপর বিয়ের সুখবর দেন জাতীয় দলের ওপেনার সাদমান ইসলাম। সব শেষ এই সারিতে যুক্ত হলেন অলরাউন্ডার মেহেদী হাসান। ৮ জুলাই জীবনের দ্বিতীয় ইনিংস শুরু করেন পেসার আবু জায়েদ রাহী।

রাহীর স্ত্রীর নাম তৌহিদা আক্তার জুহা, পেশায় চিকিৎসক। রাহীর মতো তার বাড়িও সিলেটে। ১২ জুলাই ময়মনসিংহে বিয়ে করেছেন মোসাদ্দেক হোসেন, দ্বিতীয়বার বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হয়েছেন বাংলাদেশ জাতীয় দলের এই ক্রিকেটার। ময়মনসিংহে শুক্রবার পারিবারিকভাবে ঘরোয়া পরিবেশে সম্পন্ন হয় বিয়ের অনুষ্ঠানিকতা।

তার স্ত্রীর নাম উম্মে তামান্না, বাড়ি ময়মনসিংহ শহরের তালতলা এলাকায়। রাজশাহীতে বিয়ে করেছেন নাজমুল হোসেন শান্ত। চার বছরের প্রেম বিয়েতে রূপ দিয়েছেন এই তরুণ ক্রিকেটার। ১১ জুলাই নিজ শহর রাজশাহীতে পারিবারিকভাবে বিবাহবন্ধনে আবদ্ধ হন শান্ত। তার স্ত্রীর নাম সাবরিন সুলতানা রত্না।

২৪ জুলাই ঢাকায় নাশা ওয়াহেদের সঙ্গে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হয়েছেন সাদমান ইসলাম । সাদমানের স্ত্রী নাশা নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয়ের কম্পিউটার বিজ্ঞান বিভাগের স্নাতক শেষ সেমিস্টারে অধ্যয়নরত। সবশেষ রোববার (২৬ জুলাই) সন্ধ্যায় খুলনার তরুণ তারকা ক্রিকেটার মেহেদী হাসান বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হন। বয়রায় মেহেদীর মামার বাসায় একেবারেই ঘরোয়া পরিবেশে বিয়ের যাবতীয় আনুষ্ঠানিকতা সম্পন্ন হয়। ২৫ বছর বয়সী এই ক্রিকেটারের জীবনসঙ্গিনীর নাম ঋতু। তিনি খুলনা সরকারি মহিলা কলেজের উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষার্থী হিসেবে অধ্যয়নরত আছেন।