শান্তি চান চায়না টাউনের বাসিন্দারা!

10

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : লাদাখ সীমান্তে চলছে ভারত-চীন যুদ্ধ পরিস্থিতি। এই পরিস্থিতি ভারতে থাকা চীনারা বেশ চাপেই যে রয়েছেন তা বলাই বাহুল্য। দুই দেশের এমন যুদ্ধ আবহে খাস কলকাতায় থাকা এক টুকরো চায়না নগরীর বাসিন্দারা কেমন আছেন?

মূলত কলকাতার চায়না টাউনের বাসিন্দারা চীনা হলেও তাদের জন্ম এবং কর্ম সবটাই ভারতে। বরাবর নিজেদের ভারতবাসী বলেই জানেন তারা। তাই লাদাখে চীনে আস্ফালন মেনে নিতে না পেরে এর আগে পোস্টার ব্যানার নিয়ে চীনের বিরুদ্ধে প্রতিবাদে সামিল হয়েছিলেন কলকাতার চায়না টাউনের বাসিন্দারা। কিন্তু তারপরেও কোনও না কোনও ভাবে নানারকম কটাক্ষের শিকার হতে হয়েছে তাদের।

এবার তাই আর যুদ্ধ নয়, দুই দেশের মধ্যে শান্তি ফিরুক এই কামনা করেই দেবতার কাছে পুজো দিলেন তারা। দুই দেশের মধ্যে আর হানাহানি নয়, শান্তি ফিরুক লাদাখের গালওয়ান উপত্যকায়। এমনই চান কলকাতার চায়না টাউনে বাসিন্দারা। ভারতের এই সংকট মুহূর্তে তাদের বিপদের উদ্ধারকর্তা বলে বিশ্বাস যে দেবতার উপর, সেই বোড দেবতার কাছে পুজো দিলেন চায়না টাউনের বাসিন্দারা।

উল্লেখ্য, গালওয়ানে উত্তেজনা গত দু সপ্তাহ ধরে লাদাখ সীমান্তে আস্ফালন করে চলেছে চীন। ভারতের ২০ জন জওয়ান শহিদ হয়েছেন গালওয়ান উপত্যকায় চীনা বাহিনীর সঙ্গে সংঘর্ষে। এই নিয়ে প্রবল উত্তেজনা তৈরি হয়েছে সীমান্তে। চীনের অনৈতিক দাবির প্রতিবাদে সোচ্চার হয়েছে গোটা দেশ। চীনা সামগ্রী বর্জনের ডাক দেওয়া হয়েছে গোটা ভারতজুড়ে।

এই পরিস্থিতিতে স্বাভাবিকভাবেই সকলের নজর পড়েছে কলকাতার চায়না টাউন। কলকাতার শহরে পার্ক সার্কাসের কাছেই রয়েছে ছোট্ট একটি চীন। সেখানে স্বাধীনতার আগে থেকেই বসবাস করে আসছে কয়েকশ’চীনা। ওই এলাকাতেই ব্যাবসা বাণিজ্য করে জীবন জীবিকা নির্বাহ হয় তাদের। ভারতকেই নিজেদের দেশ বলেই মনে করে তারা। তাই ভারতে থেকে গালওয়ানে চীনের আস্ফালন মেনে নিতে পারেনি চায়না টাউনের বাসিন্দারা।