বেতন কমানোর খবরে ব্যাংকারদের ক্ষোভ

19

অর্থনৈতিক প্রতিবেদক : ব্যাংক কর্মীদের বেতন-ভাতা ১৫ শতাংশ কমানোর খবরে ব্যাংক কর্মীদের মধ্যে ক্ষোভের সৃষ্টি হয়। তারা বলেন, সরকার ঘোষিত সাধারণ ছুটির সময়েও তারা জীবনের ঝুঁকি নিয়ে কাজ করেছেন এবং গ্রাহকদের প্রয়োজনীয় সেবা দিয়ে আসছেন।

এর ফলে অনেক ব্যাংককর্মী প্রাণও হারিয়েছেন। এ অবস্থায় বেতন-ভাতা কমানোর ঘোষণা তাদের উপর অর্থনৈতিক ও মানসিক চাপ সৃষ্টি হবে।এর আগে গত রোববার বেতন-ভাতা কমানোসহ ১৩ দফা সুপারিশ করে বিএবির পক্ষ থেকে এ সংক্রান্ত চিঠি বেসরকারি ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও চেয়ারম্যানের কাছে পাঠানো হয়। একই সঙ্গে কর্মীদের পদোন্নতি, ইনক্রিমেন্ট, ইনসেন্টিভ বোনাস বন্ধ করাসহ ব্যাংক বাঁচাতে ১৩ দফা সুপারিশ করেছিল সংগঠনটি।

এ বিষয়ে বিএবি ও এক্সিম ব্যাংকের চেয়ারম্যান নজরুল ইসলাম মজুমদার গণমাধ্যমকে বলেন, আমরা বিভিন্ন ব্যাংকের চেয়ারম্যানরা একসঙ্গে বসেছিলাম। একটি ইনফর্মাল আলোচনা হয়েছে। বর্তমান পরিস্থিতিতে কী করা যায় তার একটা সম্ভাব্য উপায় খুঁজে বের করার চেষ্টা করা হয়েছে। তবে কোনো ব্যাংককে এ চিঠি বা নির্দেশনা দেওয়া হয়নি। কারণ, ব্যাংক কীভাবে চলবে সেটা ব্যাংকের নিজস্ব ব্যবস্থাপনা রয়েছে।

তাদের বিনিয়োগ ও স্যালারির ধরনও ভিন্ন। ব্যাংকগুলো তাদের নিজস্ব ব্যবস্থাপনায় চলবে। এক্ষেত্রে বিএবি কোনো হস্তক্ষেপ করবে না। ব্যাংক কর্মকর্তাদের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, করোনার মহামারিতে এমনিতেই তারা আতঙ্কের মধ্যে রয়েছেন। বর্তমান পরিস্থিতিতে ঝুঁকি নিয়ে কাজ করছেন তারা।

যে কোনো সময় করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হতে পারেন। এখন যদি ব্যাংক বেতন-ভাতা কমায় তাহলে তাদের ওপর এটি বাড়তি মানসিক ও অর্থনৈতিক চাপ ছাড়া কিছুই না।