রংপুরের শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে বাড়ছে বিদেশিদের সংখ্যা

নিজস্ব প্রতিবেদক : বিদেশিদের সংখ্যা দিন দিন বাড়ছে রংপুরে। এখানে অবস্থানকারী বিদেশিদের মধ্যে শতকরা ৯০ ভাগই শিক্ষার্থী। বেশির ভাগ বিদেশি শিক্ষার্থী লেখাপড়া করছেন রংপুর মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালে, বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়, হাজী দানেশ বিশ্ববিদ্যালয় ও রংপুরের বেসরকারি মেডিকেল কলেজগুলোতে। রংপুর বিভাগীয় পাসপোর্ট ও ভিসা অফিসের কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, এতে অর্থনীতির গতি বাড়ার পাশাপাশি বাড়ছে সরকারের রাজস্ব। গত ৭ বছরে রংপুর পাসপোর্ট ও ভিসা অফিস থেকে বিশ্বের ৩২টি দেশের ৪ হাজার ৫২০টি ভিসা নবায়ন হয়েছে। তাদের মধ্যে নেপাল ও ভারতীয়দের সংখ্যা বেশি।
রংপুরের বিশিষ্ট শিক্ষাবিদ শাহ আলম জানান, রংপুর এখন শিক্ষার নগরীতে পরিণত হয়েছে। বিদেশি নাগরিকদের পর্যাপ্ত সুযোগ-সুবিধা ও নিরাপত্তা দেওয়া হলে রংপুরে তাদের উপস্থিতি আরও বাড়বে। এখানকার আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতিও ভালো। জানা গেছে, রংপুরে ২০১২ সালের ৮ ফেব্রুয়ারি মেশিন রিডেবল ভিসা (এমআরভি) চালু হওয়ার পর থেকে গত বছরের জুলাই মাস পর্যন্ত সাড়ে সাত মাসে মোট ভিসা নবায়ন করা হয়েছে ৪ হাজার ৫২০টি। এখন পর্যন্ত চাকরিজীবী, শিক্ষার্থী, ব্যবসায়ী, পর্যটক, ফ্যামিলি পর্যটক, মিশনারি, নো-ভিসা রিকোয়ার্ড ও রিসার্চসহ ৩৩টি শ্রেণিতে ভিসা নবায়ন করা হয়েছে।
একই সময়ে নবায়নের মাধ্যমে সরকার রাজস্ব পেয়েছে ৯৭ লাখ ৬৭৫ টাকা। ৩২টি দেশের মধ্যে ভিসা গ্রহণকারী দেশের শীর্ষে রয়েছে নেপাল। তাদের সংখ্যা এক হাজার ৯৭৫ জন। ভারতীয়দের সংখ্যা এক হাজার ৬৫৩ জন। তৃতীয় স্থানে চায়না ব্যবসায়ী সংখ্যা ৫৩৭ জন, সোমালিয়া ১১৪ জন, পাকিস্তান ৭৭ জন, ভুটান ৬২, মালদ্বীপ ২৯ জন, নাইজেরিয়া ২৩ জন, আমেরিকা ও বেলজিয়ামের সংখ্যা ৫ জন করে। রংপুরে অবস্থানরত বিদেশি নাগরিকদের মধ্যে চিকিৎসা শাস্ত্রে শিক্ষার্থীদের সংখ্যা সবচেয়ে বেশি। তারা রংপুর মেডিকেল, বেসরকারি কমিউনিটি মেডিকেল কলেজ, প্রাইম মেডিকেল, নর্দান মেডিকেল কলেজ, দিনাজপুর হাজী দানেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় ও বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী। রংপুর বিভাগীয় পাসপোর্ট ও ভিসা অফিসের উপ-পরিচালক আবু নোমান জাকির হোসেন বলেন, এখন যারা পাসপোর্ট বা ভিসা করতে আসেন তারা স্বচ্ছতার সঙ্গে করছেন। বিড়ম্বনা এড়াতে তাদের প্রতি নজরদারি করা হচ্ছে।