মেকআপ বিহীন ন্যাচারাল লুক

মার্জিয়া খান নুদার : মেকআপ দিয়ে প্রতিদিন বাইরে বেরোনোর সময় পারফেক্ট লুক পাওয়া যায় না। কোন কোন দিন চেহারার ব্রণটি লুকানোর জন্য কনসিলার ব্যবহার করে থাকি। ফ্যাশন সচেতন নারীরা প্রতিদিনই মেকআপের উপর নির্ভর করে। একবার চিন্তা করেন ফাউন্ডেশন, মাসকার, লিপস্টিক, ফেইস পাউডার আরো বিউটি প্রসাধনী ছাড়া আপনি ন্যাচারাল এক লুক নিয়ে কারো মুখোমুখি হতে পারবেন। কেমন লাগবে আপনার? আজকে আমরা ৬ টি বিউটি টিপস সম্পর্কে জানবো যা আেমেকআপ ছাড়াই আপনার মধ্যে প্যারফেট একটা ন্যাচারাল লুক এনে দিবে।

১. প্রচুর পানি পান করুন : স্বাস্থ্যকর এবং ঝলমলে ত্বকের জন্য, আপনি হাইড্রেটেড রয়েছেন তা নিশ্চিত করুন। দিনের বেলা প্রচুর পানি পান করুন। এছাড়াও, নিশ্চিত হয়ে নিন যে আপনি ভবিষ্যতে আপনার ত্বকটিকে মসৃণ এবং চুলকানামুক্ত রাখতে প্রতিদিনই ময়শ্চারাইজ করেছেন।

২. একটি টোনার ব্যবহার করুন : যখনই আমরা আমাদের মুখ পরিষ্কার করি, আমরা টোনার ধাপটি এড়িয়ে যাই, যা স্বাস্থ্যকর স্কিনকেয়ার আনুষ্ঠানিকতার জন্য প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ। টোনার পোস্ট ক্লিনজিং আপনার ত্বককে সতেজ করে রেখে ত্বকের পিএইচ স্তরের ভারসাম্য বজায় রাখতে সহায়তা করে।

৩. ময়েশ্চারাইজার : আপনি যদি মনে করেন আপনার মুখটি খুব নিস্তেজ দেখাচ্ছে, তাহলে আপনি মাঝারি কভারেজের জন্য একটি ময়শ্চারাইজারের উপর নির্ভর করতে পারেন। এই উচ্চ কভারেজ ভিত্তিগুলি কেবলমাত্র বড় অনুষ্ঠানের জন্য রাখুন। আর সবসময় মাঝারি কভারেজেগুলো ব্যবহার করতে পারেন। তাহলে নিস্তেজভাব থেকে নিজেকে রক্ষা করতে পারবেন।

৪. সানস্ক্রিন আবশ্যক : আপনি যখন সঠিক বিউটি টিপসের একটা নিয়মে থাকবেন তখন অবশ্যই আপনাকে মানতে হবে প্রাথমিক স্কিনকেয়ার নিয়বগুলো, কোনভাবে ভুলে গেলে চলবে না। আপনাকে নিশ্চিত হতে হবে যে আপনি যখনি বাইরে যাবেন বা বেরোবেন তার ১৫ মিনিট আগে সর্বদা সানস্ক্রিন প্রয়োগ করতে হবে। রোদে পোড়া থেকে আপনাকে সানস্ক্রিন রক্ষা করবে সবসময়।

৫. গরম লেবু পানি : সকালে তাজা লেবুর সাথে এক কাপ গরম পানি পান করুন। এই আপনার বিষাক্ত পদার্থগুলি বের করে দেবে এবং আপনার শরীরকে শুদ্ধ করবে এবং আপনাকে একটি চকচকে ত্বক দেবে।

৬. এক্সফোলিয়েট করতে ভুলবেন না : কখনও কখনও আমাদের ত্বকের জন্য কেবল অতিরিক্ত বাফ দরকার হয় এবং এজন্য আপনাকে অবশ্যই একটি ভাল স্ক্রাব ব্যবহার করে আপনার মুখটি ফুটিয়ে তুলতে হবে। এক্সফোলিয়েশন মৃত ত্বকের কোষ, জড়িত ছিদ্রগুলি থেকে মুক্তি পেতে সহায়তা করে। আপনার ত্বকের ধরণের উপর নির্ভর করে আপনি সপ্তাহে ২-৩ বার এক্সফোলিয়েট করতে পারেন।