ত্বকের সমস্যায় দুধের আশ্চর্য ব্যবহার

মার্জিয়া খান নুদার : ত্বকের সৌন্দর্য ধরে রাখতে পারলেই বয়স থমকে যায়! তাই বেশির ভাগ মানুষই সবচেয়ে বেশি সচেতন নিজের ত্বক সম্পর্কে। এক্ষেত্রে মুখ গুরুত্ব পায় আরও বেশি। মুখের সৌন্দর্য অনেকটাই নির্ভর করে ত্বকের উপর। মুখের ত্বকের সঙ্গে সঙ্গে গলা, ঘাড়, হাতের ত্বকেরও যত্ন নেওয়া জরুরি। কেননা শুষ্ক ত্বক, ডেড সেল, ট্যান পড়ার মতো একাধিক সমস্যা ত্বকের সৌন্দর্য নষ্ট করে। এই সমস্যা সমাধানে কাজে লাগাতে পারেন দুধ। এই দুধ আপনার ত্বক উজ্জ্বল চকচকে করে দেওয়ার ক্ষমতা রাখে। এবার জেনে নিন ত্বকে দুধের আশ্চর্য ব্যবহার ও কার্যকারিতা সম্পর্কে-

ত্বকের শুষ্কতা দূর করে দুধ : দুধের সঙ্গে কলা চটকে প্যাক তৈরি করে নিন। মুখে, হাতে, ঘাড়ে, গলায় এই প্যাক মেখে ৩০ মিনিট রেখে উষ্ণ পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। সপ্তাহে অন্তত দু’দিন এই প্যাক ব্যবহার করতে পারলে শুষ্ক ত্বকের সমস্যা থেকে মুক্তি পাবেন সহজেই।

ত্বকের ট্যান কাটায় দুধ : আধা কাপ দুধের সঙ্গে সমপরিমাণ গ্রিন টি মিশিয়ে মুখ, হাত, ঘাড়, গলার ট্যান পড়া অংশ তুলা দিয়ে মাখুন। ১৫ মিনিট রেখে পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। এভাবে সপ্তাহে ৩ দিন গোসলের আগে এই পদ্ধতি কাজে লাগাতে পারলে উপকার পাবেন।

ক্লিনজার হিসেবে দুধের ব্যবহার : ক্লিনজার হিসেবে দুধ খুবই কার্যকর! এক কাপ দুধ তুলা ভিজিয়ে সারা মুখে মাখুন। আঙুলের ডগা দিয়ে মিনিট পাঁচেক মালিশ করে উষ্ণ পানিতে মুখ ধুয়ে নিন। ফল পাবেন হাতেনাতে।

স্ক্রাব তুলবে দুধ : ত্বকের মরা চামড়া তুলতে দু’চামচ দুধ আর সমপরিমাণ মধুর সঙ্গে এক চামচ চিনি মিশিয়ে অন্তত ১৫ মিনিট স্ক্রাব করুন। তারপর হালকা উষ্ণ পানিতে মুখ ধুয়ে নিন। উপকার পাবেন।

পায়ের ডেড সেল তুলতে সাহায্য করে দুধ : দু’চামচ দুধ আর সমপরিমাণ মধু মিশিয়ে পায়ের পাতা আর গোড়ালিতে দশ মিনিট মাখিয়ে রাখুন। এরপর বড় কোন পাত্রে উষ্ণ পানি নিয়ে তাতে ১৫ মিনিট পা ডুবিয়ে রেখে পিউমিক স্টোন দিয়ে ঘষে নিন। দেখবেন পা পরিষ্কার আর নরম হয়ে গেছে।