আফ্রি সেলিনার অপেক্ষা

বিনোদন ডেস্ক : অনেক আগেই সিনেমাতেই তার বেশি ব্যস্ত হবার কথা ছিলো। কিন্তু বিভিন্ন ধরনের শর্টফিল্ম, বিজ্ঞাপন এবং নাটকে তার ব্যস্ততার কারণে সিনেমা’তে ব্যস্ত হয়ে উঠা যেন হয়েও উঠছিলোনা। অথচ আফ্রি সেলিনার হাসি, কথা বলার ধরণ, উচ্চতা, সৌন্দর্য্য এবং সর্বোপরি তার ব্যক্তিত্ব সবকিছুই সিনেমাতেই বেশি যায়।

তারপরও তার সিনেমা ভাগ্যটা ভালো হয়ে হয়ে উঠতে গিয়েও হয়ে উঠছিলোনা। ‘নীল ফড়িং’ নামের একটি সিনেমায় আফ্রি সেলিনা অনবদ্য অভিনয় করেছেন, এটা পরিচালক ইদ্রিস হায়দারের ভাষ্য। কিন্তু সিনেমাটি এখনো মুক্তি পায়নি। সিনেমায় যে আফ্রি সেলিনার সম্ভাবনার কথা বলছিলাম, তাও যেন দেখা হয়ে উঠলোনা।

কিন্তু তারপরও আফ্রি সেলিনা সিনেমায় নিজেকে প্রতিষ্ঠার ব্যাপারে দূরে নেই বা সরে যাননি। একাগ্রচিত্তে কাজ করে যাচ্ছেন বিজ্ঞাপনে, নাটক, শর্টফিল্মে। তবে এই সময়ের সুখবর হলো তিনি বেশ কয়েকটি সিনেমার কাজ শেষ করেছেন এবং করছেন। বাংলাদেশে লন্ডনের যৌথ প্রয়াসে নির্মিত ‘বিফোর আই ডাই’ সিনেমার কাজ শেষ করেছেন।

মুক্তির প্রচারণায় আসছে শিগগিরই সিনেমাটির টিম। ইদ্রিস হায়দারের ‘নীল ফড়িং’ যেকোন সময় মুক্তি পেতে পারে। এছাড়াও শেষ করেছেন ফাহমিদা প্রেমা’র ‘মায়া দ্য রিভেঞ্জ’ সিনেমার কাজ। তবে এই মুহুর্তে করা যে সিনেমাটি নিয়ে সবচেয়ে বেশি আশাবাদী আফ্রি সেলিনা সেটি হলো রাসেল আহমেদ’র ‘স্টেশন’। স্টেশন’র গল্প মাসুম রেজার।

মাসুম রেজার গল্প বলেই আফ্রি সেলিনার বেশি স্বপ্ন, বেশি আশা স্টেশন সিনেমাটি নিয়ে। আফ্রি এরইমধ্যে আরো বেশ করেছেন শাপলা মিডিয়ার ‘মন যারে চায়’ সিনেমার কাজ। এছাড়াও শিগগিরই শুরু করবেন তিনি শাহীন সুমনের ‘হার্টবিট’ সিনেমার কাজ। তবে এই সিনেমাতে তার বিপরীতে কে থাকবেন তা এখাে নিশ্চিত নন তিনি।

অনেক দেরীতে হলেও একের পর এক সিনেমাতে ব্যস্ত হয়ে উঠছেন আফ্রি সেলিনা। পূরণ হচ্ছে তার স্বপ্নগুলো। সিনেমাতে ব্যস্ত হয়ে উঠা প্রসঙ্গে আফ্রি সেলিনা বলেন, প্রত্যেক শিল্পীরই সিনেমায় প্রতিষ্ঠা নিয়ে স্বপ্ন থাকে। আমারও সিনেমায় নিজেকে ব্যস্ত রাখার প্রবল স্বপ্ন। শুরুতে অনেক সংগ্রাম করতে হয়েছে, নিজের অভিনয় প্রতিভাকে নানান ধরনের চ্যালেঞ্জিং গল্পের শটর্ফিল্মে, নাটকে অভিনয় করে প্রমাণ করতে হয়েছে যেকোন চরিত্রেই আমি কাজ করতে পারি।

এখন নির্মাতারা আমার উপর আস্থা রাখছেন। আমিও তাদের আস্থার প্রতি সম্মান জানিয়ে নিজের মনের মতো করে কাজ করছি। এখন বেশ কয়েকটি সিনেমার কাজ শেষ করেছি, সামনেও কয়েকটি সিনেমার কাজ করবো। তবে স্টেশন সিনেমাটি নিয়ে আমি বেশি আশাবাদী। কারণ এই সিনেমার গল্প শ্রদ্ধেয় মাসুম রেজার।

আমার চরিত্রটিও অসাধারণ। সিনেমাটি মুক্তি পেলে আমার চরিত্রটি দর্শকের মনকে নাড়া দিবে বলেই আমি বিশ্বাস করি। এদিকে আফ্রি সেলিনা এরইমধ্যে শেষ করেছেন মাহমুদুর রহমান হিমি’র ‘হাউজ নং ৯৬’র কাজ। এছাড়াও অন্যান্য বিজ্ঞাপন ও নাটকে নিয়মিত কাজ করছেন তিনি।